Lawyer Search
Lawyer Search
ID Name
 
Directories
 Find A Lawyer
 Find A Law Firm
Committees Gallery
 Bar Association Committees
 
Full Development Report 2010-2011 Download

বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বিজ্ঞ সদস্যদের জন্য ও সমিতির উন্নয়নে
২০১০-২০১১ সালে গৃহীত পদক্ষেপ সমূহের রিপোর্ট ।

প্রিয় আইনজীবী ভাই ও বোনেরা,

আসসালামু আলাইকুম ।

স্বাধীনার মহিমানি¦ত মাসে স্বাধীনতা অর্জনে যারা বিভিন্নভাবে অবদান রেখেছেন এবং ত্যাগ স্বীকার করেছেন তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধ্যা জানিয়ে সম্পাদকের রিপোর্ট পেশ করছি ।

বিগত ২৪ ও ২৫শে মার্চ, ২০১০ ইং তারিখে অনুষ্ঠিত সুপ্রীমকোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে সমিতির কার্যকরী কমিটির সকলকে ও আমাকে নির্বাচিত করায় আমি ও আমাদের কমিটি আপনাদের কাছে কৃতজ্ঞ । নির্বাচনের পরে ৪ঠা এপ্রিল, ২০১০ ইং তারিখে কমিটির পক্ষে দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকেই আপনাদের আ¯হা নিয়ে আমাদের যাত্রা শুরু করেছি । দায়িত্ব ভার গ্রহনের সাড়ে এগার মাসে বিজ্ঞ আইনজীবীদের কল্যানার্থে কি কি করতে পেরেছি তার একটি বিবরণ সকলের অবগতির জন্য পেশ করছিঃ

  1. দায়িত্ব গ্রহনের পরের সপ্তাহেই ওকালতনামার মাধ্যমে অর্থ আদায়ের বিষয়ে প্রথমেই কিছু পদক্ষেপ গ্রহন করি । ওকালতনামায় আদায়কৃত অর্থের দায়ীত্বে থাকা কর্মচারী জাহাঙ্গীর হোসেন ও মোঃ শফিককে এক সপ্তাহে একজন ও পরের সপ্তাহে আরেক জনকে অন্যত্র বদলী করি ।

  2. অন্যান্য কোম্পানীসহ সিদ্দিক এন্টারপ্রাইজ এর সিদ্দিককে ব্যক্তিগত ভাবে ডেকে নিয়ে একটি বিশেষ সফ্টওয়ার তৈরি করে Franking Machine এর সীল এর পাশাপাশি একই সিরিয়াল বহাল রেখে নতুন পদ্ধতিতে স্টীকার System চালু করার উদ্যোগ নিয়ে এক মাসের মধ্যে তা সম্পন্ন করতে বলি (সিদ্দিককে জিজ্ঞাসা করলে তা জানা যাবে) এবং পাশাপাশি সভাপতি মহোদয় তার ব্যক্তিগত হাসপাতাল থেকেও Till Machine এনে ও তা দিয়ে কাজ করা যায় কিনা এমন উদ্যোগ নেন এবং সহ-সভাপতিদ্বয়, সহ-সম্পাদকদ্বয়, কোষাধ্যক্ষ ও সকল নির্বাচিত সদস্য ইহাতে একমত পোষন করে ।

    অবশেষে এক মাসের মধ্যে ওকালতনামায় সীল মারা এবং টাকা আদায়ের সিষ্টেম পরিবর্তন করে কম্পিউটার সিষ্টেমে স্টীকার পদ্ধতি চালু করা হয় এবং এফিডেভিট কমিশনারদের তা জানিয়ে দেয়া হয়। সম্পাদক এবং কোষাধ্যক্ষের কক্ষে কম্পিউটার ¯হাপন করে সেটার সহিত কানেকশান দেওয়ায় ঐ খাতে আয় সম্পর্কে প্রতিদিন অবহিত হওয়া যায় এবং উহা বিজ্ঞ সদস্যদের অবগতির জন্য উন্মুক্ত রাখা আছে ।

  3. ওকালতনামার জন্য আলাদা কোন একাউন্ট ছিল না এবং সাধারন তহবিলে সকল অর্থ রেখে হিসাব রাখা হতো । কিন্ত শুধুমাত্র ওকালতনামার আদায়কৃত টাকা জমা রাখার জন্য আলাদা একটি একাউন্ট করি সোনালী ব্যাংক, সুপ্রীমকোর্ট শাখায় ।
    ২০০৯ - ২০১০ সালে আগের কমিটি কর্তৃক মামলার সংখ্যা দেখানো হয়েছিল ৩৭,০৫৬ (সাঁইত্রিশ হাজার ছাপ্পান্ন) এবং ওকালতনামায় আয় দেখানো হয়েছে ৯২,৬৪,০০০/- (বিরানব্বই লক্ষ চৌষষ্টি হাজার) টাকা । গত ২২/০৩/২০১০ থেকে ২২/০৩/২০১১ তারিখ পর্যন্ত মোট ------------------------ টাকা এখন ওকালতনামার আলাদা একাউন্টে জমা আছে ।

     
::anaconda::
www.bangladeshsupremecourtbar.com-Copyright © 2009 - All rights reserved.                                     Designed & Developed by: www.linuxoptic.com